লকডাউনে খাবার জোটেনি, খিদের জ্বালায় বাধ্য হয়ে গাছের পাতা খেয়ে জীবন বাঁচালেন বৃদ্ধ

গরীব দিন মজুর থেকে শুরু করে ছোট, মাঝারী ব্যাব'সায়ী সবার রোজগারের পথ বন্ধ। ফলে দেশজুড়ে খাদ্যসংকট দেখা দিয়েছে। যদিও রাজ্য এবং কেন্দ্র উভয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন কিন্তু অভুক্তদের সংখ্যা বেশি থাকায় তাতেও খাদ্যের অভাব মেটানো যাচ্ছে না। তার জলজ্যান্ত প্রমান দেখা দিল শহর কলকাতায়।

কলকাতা স্টেশনের বাইরে দেখা গেল এক বৃ'দ্ধকে । খিদের জ্বা'লায় রাস্তার ধারের ঝোপ ঝাড় থেকে কচি পাতা ছিঁড়ে খাচ্ছেন ওই বৃ'দ্ধ। লকডাউনের আগে মানুষ তার দৈনন্দিন প্রয়োজনে যে যেখানে ভ্রমণ করেছিল, লকডাউনের পর থেকে সেখানেই আট'কে রয়েছেন। এখন সমস্যা হল বাইরের রাজ্যে খাবারের যোগান নিয়ে, ভিন রাজ্যে থাকা খাওয়া একজন বৃ'দ্ধ গরীব দিন মজুরের পক্ষে অসম্ভব হয়ে উঠেছিল।

লকডাউনের কারণে দেশের মানুষ ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় আট'কে পড়েছেন। তেমনি এই বৃ'দ্ধ আট'কে পড়েছেন কলকাতা শহরে। বৃ'দ্ধের নাম গোরক্ষ সিং। তিনি উত্তরপ্রদেশের নাকাপুরা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ঘটনাক্রমে কলকাতায় আট'কে পড়েছেন।

জানা যায় বৃ'দ্ধ একজন ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা নিতে আসেন। এই টাকা নিতে এসে লকডাউন আট'কে পড়েন।বছর সাতেক আগে রাজমিস্ত্রির কাজ করেছিলেন বিধাননগর লাগোয়া এক ব্যাক্তির বাড়িতে। কিছু টাকা বাকি থাকায় সেই টাকা নিতে আসেন। কিন্তু কোনো টাকা মেলেনি। শেষ দুদিন তিনি কলকাতা স্টেশনের জল খেয়ে আছেন। হাতে টাকা যা ছিল সব শেষ হয়ে গেছে। তাই খাবার জোটাতে পারছে না। বেঁচে থাকার জন্য গাছের পাতা খেয়ে দিন চালাচ্ছেন ওই বৃ'দ্ধ।

ঘটনাক্রমে এই বি'ষয়টা রাজারহাটের আসাদুল আর ফারুকের চোখে পড়ে। তারাই এখন এই বৃ'দ্ধ অথ‍্যাৎ গোরক্ষ সিং কে খাবার দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। এছাড়া জানা যায় ওই দুই যুবক এই বৃ'দ্ধ সহ আরো ২৬ জনকে খাবার বিতরণ করছেন।

Facebook Comments
Back to top button